Skip to main content



জঙ্গলের পাগল : তানিয়া চক্রবর্তী

জঙ্গলের পাগল


আগুন আমার শিখণ্ডীরা
গুঁড়ের সঙ্গে পিঁপড়ে যেমন
আগুন আর বাতাস তেমন
আসো, আমার মারো ভীষণ করে
দাগ লাগিয়ে নাচাতে এসো
নাচিয়ে যখন দেখবে
কাঁপন ভীষণ জোয়ান
পাগল করে পাগল হয়ে
লাগিয়ে দিও বিষ,
আসক্তি আর আসক্তি
আরাধ্য হয়ে থাকবে কে!
আমিই সবার মাংস নেব
পালক যখন ফেলেই দেব
উড়ান নিয়ে কিসের এত হাসি!
এসো, সোহাগ করো দেবী
এসো, সোহাগ করো রানি
তোমার চাকের ভেতর এত মধু
আমি আশায় আশায় নষ্ট হই রোজ
নষ্ট করো আমায়
নষ্ট হতেও সুখ লাগে যে আমার




ইঁদুরগুলো খেলছে খুব
নধর নধর পুণ্যি পুণ্যি গা
গায়ের মধ্যে জাবরকাটা আলো
এসব সেলাই করো রোজ
জোড়া দিয়ে ফাঁকের বুকে
লাগিয়ে দিও জোঁক
শুষুক ওরা যত পারুক রক্ত
রক্ত, রক্ত, রক্ত
রক্ত যখন ঘরের ভেতর নাচে
বাইরে তখন খুনের ঘুঙ্গুর বাজে
বাজুক বাজুক
বাজিয়ে বাজিয়ে শরীর জুড়ে লাগুক হিল্লোল
এখন দেহ উড়তে জানে
উড়তে উড়তে পতন হলেও
এখন তার উড়ান চাই
ভীষণ ভীষণ উড়ান চাই
খাদ্য খাদক উড়ান চাই


১০

স্বপ্ন এসো ফুলকি হও
ফুলকি থেকে ভেলকি হয়ে
দাবানলে জাগো,
লাগাম তুমি ভীষণ হয়ে
উথলে বাড়াও আবেগ
যে আবেগে বেগ ভীষণ
ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে মারে,
তাদের গায়ে চর্কি লাগাই
চকচকে সব উড়ানকামী মানুষ
গতর জুড়ে নধর নধর খিদে
তুমিই আমার উৎস ছিলে
এখন খাদ্য খাদক হিসেব
আমার খাদ্য হও এসো---
খাদ্য হয়ে জুড়িয়ে দাও পেট
পেটের মধ্যে সিঁধিয়ে আছে লোভ
লোভের জন্য নামবে যেজন ভীষণ
আয়ু তাদের কৃপণ কিম্বা উদার হয়ে
মারবে পিঠে চাবুক
এ চাবুকের দাগের জোরে
গোটা হিসেব কবুল


১১

এসো, তুমি পাগল হয়ে খিদের মধ্যে ঢোকো
এখানে ঘূর্ণি ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে খাদ্যপাগল করে
এসো, তুমি মুখোশ খুলে হাট্টিমাটিম খেলো
এখানে মুক্তি ছিবড়ে করে মারে
আহা খিদে, খিদে --- স্বাধিকারের খিদে


১২

গ্রহণে এসেছ পুরুষ, ভাঁটায় এসেছ বুঝি,
জোয়ারে আসোনি কেন!
জ্যোৎস্নায় আসোনি কেন!
ওহো, তুমি তো স্বপ্ন দেখতে তখন!
গলায় সাপ তোমার, উচ্চকিত ফোঁস
ধারণ করোনি সুখ, হেসেছ কেবল
শরীরে প্রিয়ার শুধু বুনেছ স্বপ্নের ফাঁদ
খিদে শেষ হয় জানোনা বুঝি !
ফাঁক শেষ হলে কি পড়ে থাকে?
শূন্য, শূন্য, শূন্য


১৩

তুমি নিষ্কাশিত কেশর
তুমি আচ্ছন্ন ফুলের মালি
তুমি মৌমাছি হত্যাকারী হলে
তুমি হুলের বিষ লাগিয়ে দিয়ে গেলে
বীর তো তুমি তখন
বীর তো তুমি কখন
জানোও না হে পুরুষ!
আসক্তি আর উপার্জনের ভেদ বোঝো না কিছু!
তুমি বিষের জন্য বিষ
তুমি হঠকারীর শ্লেষ
তোমায় আমি মন্ত্র দিলাম
উড়িয়ে দিলে লোভে
লোভ তোমার আতুড়ঘরের ---
তবুও খেলো জীবন


১৪

পাপ আসে মুখোমুখি, আয়নায় প্রহেলিকা
জলে এসে ধুয়ে দেয়
তবু গর্হিত কি যেন লেগে থাকে গায়ে
জোর করে হাত টানে, লোভ দেয়, ঘোর দেয়, নেশা হয়
প্রাণে প্রাণ , ইতি-উতি সর্বনাশ পেট ভরে খাই
গায়ে গা, উড়ে যাই, হাসি খুব, কাঁদি খুব
চিল আসে, চিল যায়
মাংসের লুকাচুরি হয়
কাগ-বগ ভালবাসে গন্ধের মৃত্যু
আমি তবু পাপ দেখি
পাপ দেখে লালসার আঁক কষি
খুব কষি আঁক --- মৃত্যু এখানে লোভের শিকার








  তানিয়া চক্রবর্তী

Taniya Chakraborty

Comments

Like us on Facebook
Follow us on Twitter
Recommend us on Google Plus
Subscribe me on RSS