Skip to main content

Posts

Showing posts from October 30, 2016



মারি স্লেইট-এর দ্য আন্তিগোনে পোয়েমস - অনুবাদ: অর্ক চট্টোপাধ্যায়

দ্য আন্তিগোনে পোয়েমস মারি স্লেইট
(১) আমার করোটির ভেতর (সব) ওই ক্ষুধার্ত বায়স-ধ্বনি আগুন অত্যাচারের ডাকে ডাকে
আমার হৃদয়ের ভেতর (শুধু) ওই শেষ কম্পন ফিসফিসে গানের মধ্যে যন্ত্রণা

না পৃথিবীর দূরত্ব : দেবাদৃতা বসু

না পৃথিবীর দূরত্ব
১ একটা ড্রিমের ভেতরবসে আছি লুকিয়ে। এরপর সকাল হবে। সময়কনার চলাচলকে কেন্দ্র ক’রে ক্যাপ্টেন হুকের জাহাজ সামান্য দুলতেই শোনা যাচ্ছে ব্যাপারীদের বিভিন্ন আওয়াজের দুর্যোগ। কাঠের পাটাতনটা ফুরোলেই বাজার একটা। কাঠের দরজার তলায় যতটুকু ফাঁক, তার আন্দাজে শরীরটা বড়। ওই ফাঁকটুকুই আপাতত সম্বল - গন্তব্য, পরিত্রাণ এবং কোলাহলমুখর। কোথাও একটা নিষিদ্ধ ঘড়ি টিক টিক করছে আর আমি ভাবছি কি ক’রে লুকিয়ে থাকা যায় আরও কিছুক্ষণ। কেউ যেন দেখতে না পায় আমাকে। অথচ এরকমভাবে ভোর হতো এক একটা স্বপ্নের খোঁজে। মূলত শীতকাল - লেপের তলাটা সুবিধা মত সাজিয়ে নিতাম। এমনভাবে একটা সিমুলেশান, যেন বাইরের পৃথিবীর সাথে যোগসূত্রগুলো বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। রান্নাঘর থেকে আসা বাসন ও জলের বিনিময়ে যে আওয়াজ - মনে হতো পাইরেটদের হর্ন আর হর্নবিলের ডানার ঝটপট। অনেকটা এপার জুড়ে এই ল্যান্ডমাস। প্যানের সাম্রাজ্যে কেউ বড় হয় না কখনো, একমাত্র টিঙ্কার বেল ছাড়া। এত রঙ আর এত গন্ধ, পথ হারানোর ম্যাজিকটাই কবিতা হয়ে ওঠে। ওই যে বেসামাল একটা বৃহৎ ডিনার টেবিল, ভরে উঠছে কাল্পনিক খাবারে আর তার পাশেই একটা পৃথিবী, যার সমস্ত হ্রদ এবার আয়না হবে। পৃথিবীর প্রথ…

পাঁচটি লেখা নিয়ে এলেন : দীপঙ্কর লাল ঝা

রোববারের ছাতা
বারবার এই শহরে কেমন মানুষ ঘুরে ঘুরে আসে খুব জোরে হওয়া হয়, ধুলো ওরে, সূর্য ওড়ে বৃষ্টি হয় ছাতা ওড়ে একে ওপরের ছাতা কুড়োতে কুড়োতে মানুষ আরো একবার প্রেম করতে শেখে।


চারটি লেখা : সুপ্রিয় চন্দ

প্রত্নতত্ত্ব
সিন্ধু সভ্যতা পড়তে শুরু করলে ঋষিরা ধ্যানমগ্ন হন একযুগ জলের মতো ধ্বংসের উল্লাস অভ্যাসে - মানুষ নিশ্চিহ্ন হয় স্তরের আদিম ভোরে আঁকা থাকে আগুন পাওয়ার উদযাপন লেখা থাকে, রাতের আকাশ. মোড়া বিস্ময় নদীকেন্দ্রে তারপর টালমাটাল হয় গতি -- মা কে নদী মনে হয়
চাষাবাদ -- পশুপালন --বিস্তৃত স্থাপত্য এরও অনেক পরে ইতিহাস বই ।।




Nemesis : প্রিয়ক মিত্র

Nemesis
-আপনি লেখেন কেন? -অপরাধবোধ। -পার্ডন মি। -অপরাধবোধ... ঢাকার জন্য লিখি, সরি, ভুল বললাম, চেপে রাখার জন্য... মানে অপরাধবোধ চেপে রাখার জন্য লিখি। -কিসের অপরাধবোধ? -এই প্রশ্নটা... এটা একটু ব্যক্তিগত। -আমার সামনে আপনার কোন কিছুই ব্যক্তিগত নয় । সেটা আমি আপনাকে আগেও বলেছি। আমার প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর আমি পাব এটা এক্সপেক্ট করেই আমি আপনাকে প্রশ্নগুলো করছি। -(দীর্ঘশ্বাস) এটা... এটার উত্তর যদি আমি না দি? -সেক্ষেত্রে আপনাকে হেল্প করাটা আমার পক্ষে আরও ডিফিকাল্ট হয়ে যাবে। আপনার প্রবলেমটা এতটাই ইনটেন্স যে সবরকম ইনফরমেশন আমার প্রয়োজন। নইলে আমি প্রবলেমটা সল্ভ করার কোন ক্লু- -একটু জল দেবেন? -না। -কেন?

পুরো –পুরী : শুভ আঢ্য

পুরো –পুরী
চান করার সময় যেটুকু ভিজে ওঠে শাড়ি সেটুকুই পরীভ্রমণ আমার
কলকাতা থেকে তুমি একটা শাড়ির বিনিময়ে শরীর দিতে এলে সমুদ্রকে
যেখানে ঝিনুকমালা, ছড়ালে হাসির জাহাজ
জেলে, মাঝি, নুলিয়া, ট্রলারযাত্রা, নিখোঁজ - এসব শব্দরহিত হয়ে কি করে কাটাও এ জগন্নাথধাম!
কি করে পারো কথা শুনতে শুনতে বশংবদ হয়ে একটানা তাকিয়ে থাকতে
একটা চানের দিনে আমি জলকে ভয় পাই একটা শাড়ির দিনে তোমাকে ধরে সমুদ্রে নামি
খালি ওগরানো ক্ষোভ থেকে আমি চান করি
আর এই অনন্ত ভ্রমণকাল শেষ হয়ে যায়


পায়ু ও কৃমিদরদ : ডাকনামে যার সমুদ্র

পায়ু ও কৃমিদরদ

উল্টো হয়ে জাগিয়ে রাখার মত বালিঘড়ি লবণাত্মক খাল খিঁচে নেওয়া দর্দ লিরিক রেভ পার্টি ফেরত মেয়েটার টেরাকোটা বেঁহুশ
চাইলেই কি আমি ওর শরীর জুড়ে টেকনো ছড়িয়ে দিতে পারতাম না? পারতাম তো। অথচ দাঁড়ালো না, বুঝলে তো। এভাবে বারবার গুলিয়ে ফেলতে ফেলতে হাতের কাছে কাউকে না পেয়ে সমুদ্রকেই খিস্তি করেছি। কেন মেয়েটার বত্রিশ ধরে আচ্ছাসে কচলে দিতে লারলুম না? কিছুই মনে থাকতো না। বড়জোর সকালে একটু ব্যাথা হতো চর্বিতে। ভাবতো বড় হবে। প্রেমিককেও জানিয়েও ফেলবে হয়তো সেই ব্যাথা-ব্যাথার ফলাফল। আর প্রেমিক আরেকটা নতুন মাপের জন্য কি উসখুস করতো না?
Like us on Facebook
Follow us on Twitter
Recommend us on Google Plus
Subscribe me on RSS