Tuesday, March 7, 2017

পলাতক : সায়ক দত্ত

পলাতক

১.
আকস্মিক চাঁদ ধোয়া জলে কবিতা লিখতে বসে
মালকানগিরিতে আম্বানিরা ফুলদানি সাজালো।
এপাশে, ওপাশে-
পাপোষে, ধপাসে-
আমরা বরং শব্দ সাজাই।

টিলার ওপর মৃতদেহগুলো আসিমোভের নিয়ম মানে না-
মরা ম্যাপলগাছের নস্টালজিয়ায় যেমন গোপালঠাকুর নেই।
ডানে, বামে-
পাঁচমাথায়, আওয়ামে-
চার ওয়াক্ত ফ্যানের গন্ধ বরং ছড়াক।





২.
ধূমায়িত আকাশের অন্ধকার নেমে আসে,

একে একে ছুঁয়ে দেয় পতঙ্গভুক উদ্ভিদের রাত্রিবাস;

গলিতে গলিতে হারানো ঘাসের নিঃসঙ্গতায়

কংক্রীটের নিষিদ্ধ লিফলেট

বিলিয়ে দেয় অপ্রাপ্তিজনিত জিঘাংসা।



ফুটপাথের বাহারি ইঁটের আনাচেকানাচে,

ক্লেদাক্ত যাপনের সমাধি। এপিটাফ এঁকে দেয় অন্ধকার।



বিদ্ধস্ত মিনিবাসে গেঞ্জি শুকিয়ে ত্রুবাদুর

রাতের মোহনায় ত্রিবেণী সঙ্গমের সুর খুঁজে চলে…



৩.
গাঙচিলগুলো বিরলতম সন্ধ্যার চৌকাঠে
মৃত্যুভয়ে ঢেউয়ে ভাসায় এক সমুদ্র ক্লান্তি।
বিসদৃশ ত্রিভুজের মতন ছেঁকে ধরা দেশলাইবাক্সের ভিড়ে,
চুঁইয়ে পড়া সময়ের সাথে সন্ধি-
যুদ্ধকালীন ষড়যন্ত্র। 
 চূর্ণির স্রোত জানান দিলে বীরনগরের বুক চিরে,
আলতো বিকেল, কিশোরীর চুল-
 আবিরে, রাঙিয়ে দিলে ক্লান্ত উড়ান
মধ্যপ্রাচ্য আকাশ থেকে ছিনিয়ে আনবে বারুদ,
প্রদীপ জ্বলবে বসন্তে-
মনসাতলার বটের ঝুড়ি পৌঁছে যাবে বিপর্যস্ত বন্দরে।















সায়ক দত্ত
Shayak Dutta