Friday, July 14, 2017

তামুজ এবং আমি ~ একটি দীর্ঘ কবিতা : বেবী সাউ

তামুজ এবং আমি

অতঃপর শূন্যতা নেমে আসে
হাঁটু পেতে বসে ঈশ্বর
বকরূপী ধর্ম
নীতিবাক্য যত নিশ্চল
কোথাও প্রলয়ের ধ্বনি বেজে ওঠে
কোথাও বা পায়ের শব্দ
ভুল করে পুষে রাখি ভ্রম
ভ্রমণে উঠে আসে নিকেলের স্বর
দমবন্ধ অবস্থান

তামুজ হে! অবসর এই
শুরু করো দীর্ঘতম চিঠি
পাঠ করো,
শ্রবনের মাঝে এইটুকু সমর্পণ
দেখো, ধৈর্যহীন হয়নি মৃত বাজের আত্মা
পঙ্গুত্ব নিয়ে বসে আছে শেষ উপাখ্যান
রক্তহীন এই মাটি জুড়ে
বায়ু জুড়ে
এখনও অপেক্ষা করে দীর্ঘদিন
সমস্ত ধর্মপুরুষদের ছেড়ে জেগে উঠবে
প্রেম, কাল হীন,কামহীন, অনন্ত

এখনও লালপায়া অষ্টাদশী সবটুকু ভেঙে যাওয়া স্বপ্নে পুষে রাখে জোড়া দেওয়া কাঁচ
এখনও প্রসাধনে সেজে আছে সন্ধ্যে তারা
শৃঙ্গারে সুখী বেনারসী
শাঁখ বাজে
পাঠ করো পাঠ করো
 প্রিয় তামুজ, আমার প্রথম কৌমার্য

 দেখো ওই শহরের খাঁজ
সেখানেই যৌনপিশাচের দল
রাতভর হত্যা করেছে প্রেম
প্রেমিকার মন
ব্লাউজের হুকে ঠোঁট কেটে গেছে
সেপটিপিনে লেগে মাংসের গন্ধ
তবুও রাতভর থামে নি'কো
রাতভর উল্লাস করেছে নৃত্য
লিঙ্গ উপাসক তারা
দুধ ঘৃত জলে অবগাহন নয় শুধু
নিপুন কৌশলে শিখেছে হন্তারক পন্থা

তারপর! তারপর

ওরা ঘুমিয়েছে রোদে
শহর নেমেছে পথে
ছদ্মবেশ প্রেমহীন চোখে ফের দহন করেছে বুক
সারাদিন পরোক্ষ এক পিশাচীয় খেলা
উউফফ!
আর না, তামুজ, প্রেম আমার
একবার শুধু পাঠ করো এই দীর্ঘতম চিঠি
ভুল তোমার বানানের আঙ্গিক
ছত্রে ছত্রে সরল বালকের চাহিদা
তাতেই ভরে যাবে এ ধর্ষিত বুক
ভেঙে যাওয়া পাহাড়ের চূড়া
আবার সংশ্লেষ হবে তাতে
আবার জেগে উঠবে প্রেম
সমস্ত পুরুষকে যে মেয়ে ভেবেছে প্রতারক বলে
বিশ্বাসে আঘাত গুরুতর জখম
ফেরাও তামুজ হে, আমার প্রথম কৌমার্যের প্রেমিক

তুমি তো পুরুষ নও, লিঙ্গ ভেদে
দেখিনি কখনও
ভ্রম আমার?
এটাও ভ্রম!
সমস্ত সত্যি ভেবে নির্দ্ধিধায় তুলে দিয়েছি হাত
গোলাপের পাপড়ি ঠোঁটে এগিয়ে দিয়েছি চুম্বন
আকন্ঠ পিয়াসীর মতো পান করেছ আমার স্তন
প্রেম নয়প্রেম নয়?
সমস্তটাই ছলনা?
অন্য কোন পুরুষ ছুঁয়েছে বলে এই দেহপ্রান্ত
নশ্বর দেহ
তাতেই সব প্রেম উড়ে গেছে তোমার!
তাতেই তুমিও শেণ্য চোখ দিয়ে জরিপ করেছ বারবার
শহরের মতো!
ধিক্কার দিই কাকে!
কাকে বলি নশ্বর এই দেহভাগ ছাড়া
কোথাও ছুঁতে পারেনি নিশাচর পিশাচের দল
শলাকার মতো ওই উত্তপ্ত ক্ষুধা
উপভোগ করেছিল ওরা যখন
একমনে আমি তোমাকে চেয়ে গেছি তামুজ
ভেবেছি তোমার ওই প্রথম আলিঙ্গনের কথা
কোন পুরুষ ঢোকে নি মনে
কোন স্পর্শ ছুঁতে পারেনি ওই সতীচ্ছদের দ্বার
যা কিছু ঘটেছে ওরা চেয়েছে বলে
আমি তো তোমাকে সমর্পণ করে গেছি দিনরাত
ভেবেছি তোমার প্রথম স্পর্শ
ভেবেছি তোমার প্রথম শিহরণ
দুভাগ করে দেখো এ বুক
লেগে আছে শুধু তোমার চুম্বনের দৃশ্য

তামুজ হে, যেওনা।
চৌকাঠে দেখো ওই মৃত আত্মারা ঘোরে
আশ্রয় নেই
স্নেহ ভালোবাসা নেই
পিতা নেই
ভাই, বন্ধু, সখা
নারী অভিযোগে চিহ্নিত করেছে শহর
শুধু নারী! শুধু ভোগ্য পণ্য
নখের আঁচড়ে ভেঙে গ্যাছে প্রেম
তামুজ একবার দেখো মন
এখনও কারো স্থান নেই তাতে

ফিরে গ্যাছে, আমার প্রথম কৌমার্যের প্রেমিক
শহর ধর্ষণ করার আগে
যে প্রথম ভেঙেছিল সতীচ্ছদের দ্বার
বুঝিয়েছিল প্রেম আসলে মিশে থাকে মনে
অর্ধেক শতাংশে মনের বাস
দিনের পর দিন ভোগ করেছে
নিপলে ঘষেছে ঠোঁট
সদ্য উত্থিত শ্মশ্রু

আজ

ঘর নেই সংসারে
ভোগ আছে শুধু




বেবী সাউ

Baby Shaw