Skip to main content

Posts

Showing posts from January 22, 2017



অমাত্রিক অমাতৃক : জয়দীপ মৈত্র

অমাত্রিক অমাতৃক
১/ এই আলো দিয়ে দেহ ঢুকেছে শরীরে। বহু আগের মৃতদেহ কখনও বাতাস হতে চেয়েছিলো। আনমনে শুনতে চেয়েছিলো ভাটিয়ালী। মাঝির পোশাকে ব্যাধি। যেভাবে অন্ধকারে হারিয়ে যায় বহুবার পরা ঈশ্বরের জামা। আমাদের বুকে ফুটো নাকি নৌকোহীন জলের চিহ্ন? হে অসুখ, হে চিরকালীন ভাঙা ঘড়ি, এই রক্তমাংস দিয়ে তুমি আমাকে খোঁজো। দশচক্রের অসীম সীমায় খুঁজতে খুঁজতে আবার ছায়া হয়ে যাও। হারিয়ে যাও আলোর আগের দেহে। ভেবো অন্ধকার নয় এই দূরত্ব আসলে মৃত নক্ষত্রের আলো।

তিনটি লেখা নিয়ে এলেন : অমিত দে

শুক্লপক্ষ বয়েস ভাসছে ক্যানেলের জলে আকাশ আজ অমর হলেও তোমার উরুতে গ্রহন লেগেছে পায়ে পায়ে কাটা ফোটেনি কুলগাছ পাহারাদার আর ধানশিষ বারবার কেন মাধবীলতা— সুতোয় সুতোয় ঘুড়ি হওনি পাশ কাটিয়ে ভেসে থাকা ফেটে যাওয়া বেলুন দিগন্ত খুলে দিয়েছি অস্ত দেখতে পাচ্ছি না কেউ জোয়ার ভাটায় মুছে যায়          আমাদের দিনরাত


জ্যোতির লেখা : জ্যোতির্ময় বিশ্বাস

জ্যোতির লেখা
১| এই জীবনে এযাবৎ একুশটি বছর তো গেলো অক্ষরগুলি চিনেছি সেই কবে শব্দগুলির সাথে প্রায় রোজ দেখাশোনা শুধু বাক্যগুলি চিনে রাখতে ভুল হয়ে যায়, পারিনা

২| একই সম্পর্কের ভিতর আমরা যাতায়াত করেছি বহুবার ফলত পায়ের চিহ্নাদিকোনটা যে আসার কোনটা চলে যাবার আর কোনটা ফেরার, তার কিছু ঠিক নেই
মানুষের বাড়িতে অনেক বিভেদ থাকে ঈশ্বরের সমুদ্রতীর তাই আমাদের অনেকের বাড়ি থেকে অনেকটা দূরে।

৩| গাছেদের সাথে সাথে গাছের তলারও বয়স বাড়ে অতল বদলে ফেলে নদী
দু’জনই এ’কথাটি ঠিক বুঝে যাবো বহুদিন পর একদিন দেখা হয় যদি।
Like us on Facebook
Follow us on Twitter
Recommend us on Google Plus
Subscribe me on RSS