Baby Shaw

মৃত্যু 
চলে যাওয়ারও একটা গন্ধ আছে 
একটা রঙ 

একটা হাওয়া 


আমরা ধূপ জ্বেলে 

নোনা জলে 

ওই হাওয়ার সাথে
গন্ধের সাথে 

যুদ্ধ করি 


মুছে দিতে চাই 



জার্নি
আমাদের ট্রেন ছুটছে। ঝালমুড়ি আচারে মজে আছে রাতজাগা মেয়ে। ঠোঁটে ফিকে হয়ে যাওয়া লিপস্টিক। ঘরে অসুস্থ ভাইদুখী মা। বাবা তারা হয়ে গেছে। তারা মানে আমরা না। ট্রেনের বাইরে উঠতি সবুজ। আমরা মন দিয়ে সবুজ শিখছি। রাতজাগা মেয়ের চোখে মাসকারা। কালি বোঝা যাচ্ছে না। মায়াবী লাগছে। আমরা মায়া চোখ ভালোবাসি। রাতজাগা মেয়েদের ভালোবাসি রাতে।


অপেক্ষা
টেবিলে জমা হচ্ছে অভিমান 

কাঁটা চামচ একা পড়ে আছে 


কেউ বলছে না 

এসো আলাপ জমানো যাক 

এসো কথা আছে





* আগস্টের রবিবার *

আজ অনেকদিন পর শৈশব আর কৈশোর এলো আমাদের ঘরে। অনেক দিন আগেরছেড়ে আসা গ্রামমৌজ করে সোফায় পা তুলে বসে বললচা দাওবাসি রুটি দাও সাথে গুড়। আমি অসহায়ভাবে এদিক ওদিক তাকাচ্ছি। আড়াল খুঁজছি। কাজের অজুহাত দেখিয়ে বলছি অন্য দিন এসোআমার চায়ের কাপ হারিয়ে গেছে রুটিতে অম্বল। রক সঙ্গীতে ভরে আছে মেহগনি আসবাবআমার চারফুট রসুইঘরকাচের গ্লাস। চিলি চিকেনের গন্ধ ঘিরে জমে উঠেছে আগস্টের প্রথম রোববারের সন্ধ্যা।
আর আজ হঠাৎই এতদিন পরেমনে হচ্ছেএতদিনের ভুলে থাকা সেই আশ্চর্য ভালুকের গল্পের প্রথম বন্ধুটি আসলে কেউ না... কেউ না... মুখ খুঁজে না পাওয়া আমারই ছায়া।




পরাজয়

যুদ্ধ ক্ষেত্রে এসেছি। যুদ্ধ শেষ হলে বাড়ি ফিরে যাব। চারিদিকে এত হাড়গোড় ছড়িয়েএত ঘামনুন ছড়িয়ে তোমায় দেবার মতো আশ্চর্য স্মৃতি চিহ্ন কোথায়! আশাব্যঞ্জক গান কোথায়! টিটি ইঞ্জেকশনের সিরিঞ্জ পায়ে ঢুকে পড়ছেখালি অ্যালপ্রাজোলামের প্যাকেটে ভরে আছে ব্যাগের অর্ধাংশ। আলতায় ভরে উঠছে পা। বুকে কফ।

বাজনদার নেই বলে কী নিরুপায় ভাবে কাটছে এই বিজয় মহোৎসব! এই অন্তিম লাইভ শো!



ঘুম ভাঙার পর

সত্‍সঙ্গ শেষে ঘরে ফিরে আসি। যাজকের চোখে যে ঐশ্বরিক ছায়াভুল করে তাকেই যৌনতা ভাবি। আঁধার দেয়াল জুড়ে টিকটিকি ছাপভেজা ছাতাদের ভ্যাপসা ঘ্রান আর নিমগাছ বেয়ে নামে মেটে সাপ। তখনি।  ঘুঘুদের ভাষা বুঝিনি কখনো। বৃষ্টি নিয়ে গেছে জমানো ধুলো। ভুলে গেছি যাজনের স্তোত্র।

মনে হয়আমি ছাড়া কেউ নয় আমার পর!









   বেবী সাউ


Baby Shaw
Like us on Facebook
Follow us on Twitter
Recommend us on Google Plus
Subscribe me on RSS