Skip to main content



Supriya Chanda

অক্ষর উপবাস


মেঘের মোড়ে -- এলোকেশী বৃষ্টির মনে হওয়া --
দাঁড়িপাল্লার মাপে গয়নার কারুকাজ --
আরো কিছু রোদ --
              অযথা আনমনা হয় --
শহরের লতায়পাতায় --
মুখগোঁজা জলেদের বয়ে চলা --
আকাশের অবাধ বাজার
                জমে থাকে ---
আমাদের সমাপিকা বর্ণমালায় ।


অন্ত্যমিল

উড়ন্ত সব বাতাসসেপাই
হরির লুঠে কীর্ত্তনীয়া
বাতাস আকার খোঁজার নেশায়
মর্ত্তলোকে বিষ্ণুপ্রিয়া
বাড়ন্ত ক্রম বংসপুজি
অষ্টপ্রহর নিত্যপাঠে
প্রচন্ড শ্রম গ্রীবায় গুজি
বুলির বহর বৃদ্ধমাঠে
জীর্ন শকট ক্লান্ত ঘোড়া
সময় হঠাৎ নৌকারোহী
ক্ষুদ্র বৃহত কলসি সরা
পাখির ভাষা বাতাসবাহী





শীত

মসজিদের পাশের রাস্তা পার হতে হতে
হঠাৎ জল দেখতে পেলাম আমরা
এই অঞ্চলে সন্ধের বড়ো প্রয়োজন

রাত আটটা কুড়ি
বিশাল কোন রাত নয়
তবুও তোমার চেষ্টায় ,কোন জল
এখনো এখানে পাওয়া যায় নি
মার্বেলের দোকান,প্যান্ডেলের কাজ
আর আত্মরক্ষা প্রশিক্ষণ শিবিরের আনাচেকানাচে
কোথাও কোন লেখা পাওয়া যেত না তখনো

তারপর বেদের সভ্যতা
খুরের আওয়াজ আর অলংকারে
কান ভারী হয়ে উঠলো ক্রমশঃ
কত দূরে গিয়ে থাকো তুমি



জন্মদিন উদযাপন

বরং তুমি পর্দা সরিয়ে নাও-- সব ঘর থেকে
নিজের মতন করে হেঁটে যাও ঘরময়
বাইরে বেরুবার সময়
জুতোজোড়া পরে নাও শুধু --
ঘাটে যাও
ঘাটে কোন পর্দা থাকে না
বয়ে যাওয়া আয়নায় নিজেকে দেখাটা
বীভৎস ভাগ্যের ব্যাপার
ঘাট থেকে তারপর সোজা চলো জঙ্গলে
এভাবেই এখানে এসেছি



সুপ্রিয় চন্দ
Supriya Chanda



Like us on Facebook
Follow us on Twitter
Recommend us on Google Plus
Subscribe me on RSS