Indrajit Dutta

যদি তোমায় কবি না বলি
যারা চলে গ্যাছে আমি তাদেরই কেউ
রবিবার বাদ দিলাম
চুলকাটা, কাপড় কাচা, দুপুরের মাংসভাত
যেটুকু ধরার
খেয়ে নিচ্ছে কবিসম্মেলন
নিঃশ্বাসের প্যাটার্ন
পৌষে ভরসা রাখি না, ইয়োর হাইনেস
দুধপুলির মত নিকোনো ম্যাকবেথ
তোমার আসনে আসনে বাজিগর
দোলাও রুমাল, যতুগৃহ
হে দিল-ও-জান
আমি তোমার নাভির সিমপ্যাথি
টিউকল টিপে জল খাই
যতটা চেনা না-চেনা অর্গাজম
আমি তো তারাই
যারা যুদ্ধে গ্যাছে


না বলা মানুষটার ইন্সট্রুমেন্টাল
আলমারির খারাপটা আমি নিয়েছি
সেটুকুই, যেটা মহানদী
বিপরীত ঝরোখা
বাঁশিতে বাঁশিতে ক্লান্ত রেফারি
আমায় মুক্তি দাও হে ব্যবহারহীন
হে নিমগাছতলা
একটা জেরক্স বিদ্বেষ নিয়ে নেমে এসেছি জিভে
প্রতিটি রবিবাসরীয়ের চতুর্থ পৃষ্ঠা
একটা প্রেয়ারহল
একটা যুদ্ধের বিকল্প
আমি তো আছিই
বহুজাতিক ছায়াপথ। মাল্টি ন্যাশনাল
তুমি কি ততটা বেঁকতে পারো প্লেটোনিক
যতটা এগিয়ে গেলে
ঘন্টাঘরের আদল তোমাকে ফিরিয়ে দেওয়া যায়
ব্লাউজের গতিবিধি
যতটা টর্চ আর ব্লেডের কারিকুরি
তোমাকে ফিসফিসিয়ে বলতে পারে
চূর্ণ হও, অনুপুঙ্খ, ভাঙো....



চাইছি যা নিভুনিভু
ততোটাই ব্যর্থ অক্ষর ছুঁড়ে দাও
কিছুটা অসহায়
তোমার আমার সেতু, অলীক জীবন
বয়সের ভেতরে কারুকার্যময় গুটিশুটি
চিনেমাটির গেলাস
একটা আধটা সাম্প্রদায়িক পিছলে যাচ্ছে
সেই যে নিরুদ্দিষ্ট পথিক
এক পা এক পা করে জিব্রালটার,
অহেতুক সিনা জড়ো করে
পলিমাটির পাঠক
তারই গ্যালো চৈত্র দাও আমায়
তুমি নেই
হত্যার স্তব্ধতা যে কথা প্রমাণ করে
সেই আঁচলের গন্ধে তবুও আমায় ভাবো
মলাটে বাঁধো, না থেকে
যতদূর চোখ
ততোদূর বৃষ্টি দাও
সাঁতার দাও ততোদূর, বাকিটা
কবিতা, কবিতায়
বাঁচি হে পরজন্ম, দুধ হই
আজন্ম ঠোঁটে




বিপ্লব

আবৃত্তিতে তোমার দক্ষতা

আমরা শুনলাম
আমরা বুঝলাম

চিলেকোঠা পেরিয়ে নীচে নেমে এলাম

পাশের বাড়ীতে কেউ
মাছধরার ছবি আঁকছে
ট্রামে চড়ে বলছে, গল্প নয়

তুমি স্কুলে চলে গেলে আর

পিকনিক শেষ হলো





গাইড

প্রতিসরণেই তো আমাদের শুরু
ঠিকানা লেখার দিন

অথচ তুমি পা ডুবিয়ে পেরিয়ে এসেছো জল

ভিজেছো

এতক্ষণে স্নান শেষ তোমার। চলো
তোমাকে গ্রাম দেখাই, অনেকদূরের মাটি
আসছে বছরের বোধন

আমাদের দুঃখ খুশী তেষ্টা খিদে
কিভাবে সংক্ষেপ হয়ে যাচ্ছে
পরস্পর

চলো দেখি




মিসডকল

ভ্রমনের দিকে রটে যাচ্ছে রোদ
পোষাক ঠিক করে নাও

একেক দিন একেক জনের নামে
আলো কমে যায়

একেক দিন একেক জনের নামে
দেওয়াল থেকে সরে যায় ঘোড়া

পোষাক ঠিক করে নাও
রোদ এগোচ্ছে তোমার দিকে





অনুত্তীর্ণা

তোমার আঁচল টেনে রাখে আমায়

মাটি থমকে যায়
মাটি থমকে যায় গমকে

বহুদিন ধরেই
আমাকে আমার থেকে
আলাদা করতে চাইছো তুমি

চাপ দিচ্ছো
খুঁড়ছো আমায়

প্রতিবেশী রমনীর মত
বছর বছর মা হয়ে উঠছো
শেষমেষ

বিয়োচ্ছো









   ইন্দ্রজিৎ দত্ত

Indrajit Dutta