Kissoloy

অনুসিদ্ধান্ত

এই পড়ন্ত বিকেলে একাকী পাহাড়ের দিকে চেয়ে থাকতে
দেখা যাবেনা আমায়।
পাইন গাছের আড়ালেও থাকবেনা সূর্য কিরণ কিংবা সাদা মেঘ।
বহুদূর থেকে শোনা যাবে কুড়ি বছর আগের একটি চিৎকারের প্রতিফলন শুধু

সহজ রাস্তায় এসে দূর্গম পথের সন্ধান পেলে প্রিয়তমা,
লিখে রেখসহজ রাস্তাও মেলেনা সহজে।



উপাসনা

ভেতরে ভেতরে পুষেছি শত লোভ,
কাম, ক্রোধ, মোহের বাসনা
তুমি ক্ষমা কোরো...

শরীরে আমার এক অবসন্ন মৃতের বাসস্থান!

বিষাক্ত ফল দিয়ে পুজো দেব তোমায়
হে ঈশ্বর, তুমি রাগ হবে নাতো?



একটি প্ররোচনামূলক কবিতা

যে ঘাতকটির সাথে তোমার পরিচয় ছিল
সে খুন করতে পারতোনা!যেহাতে তুমি চুমু খেতে খেতে দেখে ফেল
একটি চকচকে ধারালো ছুরি
আর সযত্নে তর্জনী বোলাও তার খুঁরধারে

যে রক্ত দেখেও তোমার ঘোর কাটেনা 
কিম্বা তোমার আত্মহত্যা পর্যন্ত ভয়ে কুঁকড়ে যায়,তাকে আমি সর্বনাশ জানতাম

যে তুমি ছুরি দেখলেই খুনী ভাবো
সেই তোমাকেই বলবোবিশ্বাস কোরো
ছোট্ট ছেলেটির হাতে আমি ছুরি দেখেছিলাম
সামনে ছিল জন্মদিনের কেক!







             কিশলয়

Kissoloy