Prasanta Sarkar

এই আলো, আলফাজ্‌ ... 10

যেখানে স্বর্ণকমল, সেখানেই রুহ্-বা-রুহ্                                           থেমে থাকছে ফরিয়াদ...

এই সমস্ত উপবন, এই পারাবত, শিকার
এই পিরপাঞ্জাল, শান্ত গমখেত...

আর ক্রমশ আঙুলের ব্যবহার তারও, আরও
সহজ করে দিচ্ছে হারেমের গতিপথ...

এখানে সন্ধের পর, যেভাবে লুটে নিচ্ছে কোক
বাক-রুদ্ধ আলোর বিসমিল-
অথচ যেখানে স্বর্ণকমল,

যেখানে খুঁটে নিচ্ছে ত্বক, ফুলের বুনিয়াদ...





এই আলো, আলফাজ্‌ ... 11

গুলশন, মুখ্যত রাগ... কিংবা দূরাকাশপ্রিয়,

তবু যতটা ইঁটভাটা, কশমাকশ্
এরপর ততটাই মুখস্ত হয়ে যাবে লাল, আগুনের ইস্তেহার...
লম্বা খিলান থেকে এই-
তার সমস্ত হেঁটে রেখে যাওয়া,
নক্স-এ-কদম কিংবা আলোচ্য যা কিছু,
সবই সহনশীল হতে হতে কখনও
তাৎক্ষণিক ধোঁয়া হয়ে উড়বে বিরামে, বিশ্রামে...
তারও ওপারে, ম্লান ডাকা কাকভোর
অথবা পরমায়ু ভাঙতে ভাঙতে যথারীতি বৃক্ষ ও শাখায়
ছুঁয়ে দেবে আলতামিরা... আরামের খুশনুমা-

আর বস্তুত যেভাবে গুলফাম, 
কুঁড়ি...
ভেঙে
 
ভেঙে
তুলে রাখবে এক-একটা আলোর কোলাজ..





এই আলো, আলফাজ্‌ ... 12

অহরহ কুসুমের পাশে... যার হাতেবোনা মাঘমাস
তুমুল নহবতে তারও সানাইয়ের সুর, এখন সুচারু...
 
যেখানে ঘুমের ভেতরেও পর্যাপ্ত ধৈবত, কিছুটুকু ম্লান-

হলেই বা স্বভাবের পর আর নিজস্ব কিছু অর্বাচীন লিপি,
তবু প্রহরে প্রহরে যেন পিছিয়ে দিচ্ছে
 মেলিহার স্রব...
বিছিয়ে দিচ্ছে তার অমনধারা স্ফটিকের আলো,
 
যতটা জোনাকি,
 
তবু দান মারফৎ... আপাত উঠোনে ঢের-

যতক্ষণ না হাতে হাতে রং উঠে আসছে মেহেদির
কড়াপাক থেকে কিছুদূর প্রণয়ের মতো স্বর...
 
আর 'ফুলে ফুলে ঢলে' পড়ছে দাহ্য মরশুমি মথ...

যতটা মুরোদ ছিল, আলোচ্য ঘুমের পাশে শুয়ে
কিংবা যতটা রেখেছে হাত, বস্তুত পতনজনিত...













   প্রশান্ত সরকার
Prasanta Sarkar